English to Bengali, বাংলা ও ইংরেজি, Online English to Bengali Tense, English Gramma

শিক্ষায় জীবন

Friday, August 13, 2021

কমলালেবুর উপকারিতা বা পুষ্টিগুণ, আপনাদের জন্য তো আজকের টিপস কমলালেবুর উপকারিতা বা পুষ্টিগুণ

            

       মলকির পরে ভিটামিন C এর উৎস হিসেবে যাকে ধরা হয় তা হল কমলালেবু (Orange) । কাঁচা আমলকি যেহেতু সারা বছর পাওয়া যায় না, তাই সেটা শুকনো বা পাউডার রূপে রাখা হয়। কিন্তু কমলালেবু সারা বছরই পাওয়া যায়। তাই ভিটামিন C কে নিয়ে আমাদের আর দ্বিতীয়বার ভাবতে হয় না। কমলা খাই না এমন মানুষ খুব কম আছে। মুখে স্বাদ নেই তো কি হয়েছে, মুখের রুচির জন্য আর মুখে স্বাদ আনার জন্য একটা কমলাই যথেষ্ট। ওজন কমানো, ত্বকের পুষ্টি এমন কি হৃদযন্ত্র ভালো রেখে শরীরে রক্ত চলাচল নিয়মিত রাখতে সাহায্য করে কমলা। কমলার রয়েছে আরো অনেক উপকারিতা। আপনাদের জন্য তো আজকের টিপস কমলালেবুর উপকারিতা বা পুষ্টিগুণ   



রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে

       কমলা আপনার প্রতিদিনের ভিটামিন সি এর চাহিদা পূরণ করে। একই সঙ্গে এ ফলটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট জাতীয় উপাদান। এ পুষ্টি উপাদানসমূহ রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং ছোটবড় নানা ব্যাধি ও সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা দেয়।


         আমাদের মুখে ভিটামিন সি এর অভাবে যে ঘাঁ হয় সেটার ঔষুধ হিসেবে কমলা অনেক ভাল কাজ করে।এটি ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রনে সাহায্য করে। কমলাতে উপস্থিত বিটা ক্যারোটিন সেল ড্যামেজ প্রতিরোধে সহায়তা করে। এতে উপস্থিত ক্যালসিয়াম যা দাঁত ও হাঁড়ের গঠনে সাহায্য করে।


সুন্দর ত্বকের জন্য

      বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের ত্বকও দ্রুত বুড়িয়ে যেতে শুরু করে। ভিটামিন সি ছাড়াও কমলায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমূহ ত্বককে সতেজ ও সজীব রাখতে সাহায্য করে। বার্ধক্যেও ত্বককে অনেকটাই মসৃণ রাখে, সহজে বলিরেখা পড়ে না। কারণ, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিস সি ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখে বহু বছর। ফলে, বয়স বাড়লেও, আপনাকে দেখাবে চিরতরুণের ন্যায়।


চোখের জন্য

       প্রতিদিন একটি করে কমলা খাওয়ার অভ্যাস আপনার দৃষ্টিশক্তিকে ভাল রাখে। কারণ, কমলায় রয়েছে ভিটামিন এ, সি ও পটাসিয়াম। এ ভিটামিনগুলো আপনার দৃষ্টিশক্তির জন্য বেশ উপকারী।


পাকস্থলীর আলসার থেকে সুরক্ষায়

       আঁশের অন্যতম উৎস কমলা পাকস্থলীকে সুস্থ রাখে। নিয়মিত কমলা খাওয়ার অভ্যাস পাকস্থলীর আলসার ও কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে সুরক্ষা দেবে। পাকস্থলীকে রাখবে সবল।


ক্যান্সার প্রতিরোধ (anti-cancer)

          কমলায় প্রচুর পরিমাণ ভিটামিনের পাশাপাশি রয়েছে আলফা ও বেটা ক্যারোটিনের মতো ফ্ল্যাভনয়েড অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সহ অন্যান্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যৌগ যা ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। কমলায় উচ্চমাত্রার পুষ্টিগুণ হচ্ছে ফ্ল্যাভনয়েড যা ফুসফুস এবং ক্যাভিটি ক্যান্সার প্রতিরোধে কার্যকর। তাই ক্যান্সার থেকে রক্ষা পেতে প্রতিদিন ১ টি কমলা খাওয়া উচিত।


       কমলার ভিটামিন সি উপাদান (vitamin C content) আমাদের শরীরে ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এটি আমাদের শরীরের কোলন ক্যান্সার (colon cancer) ও ব্রেস্ট ক্যান্সারের (breast cancer) অন্যতম সেল প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে।


ব্যথা উপশম (pain killer)

        ব্যথা উপশমে কমলার তুলনা হয়না। কমলা ও কমলার জুসের পুষ্টিমাণ আমাদের শরীরের যেকোন ধরণের ব্যথা উপশমে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখে।


কিডনি রক্ষা (kidney protector)

     কমলার উচ্চ সাইট্রেট উপাদান ( high citrate content) কিডনি রক্ষা করে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি কমায়। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে লেবুর থেকে কমলার জুস আরও ভালভাবে আমাদের কিডনির দেখভাল করে।


ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ (diabetes management)

      কমলা একটি উচ্চ ফাইবার সমৃদ্ধ ফল। আর দি নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিন(the New England Journal of Medicine) থেকে প্রকাশিত একটি আর্টিকেলে লিখা হয়েছে উচ্চ ফাইবার আমাদের শরীরের সুগারের মাত্রা কমিয়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে একটি বড় অবদান রাখে। তাই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে নিয়মিত কমলা গ্রহণের বিকল্প হয়না।


কলেস্টেরল হ্রাস (cholesterol reducer)

      প্রতিদিন ৭৫০ মিলি. কমলার জুস গ্রহণ করলে আমাদের শরীরের ক্ষতিকর কলেস্টেরল (bad cholesterol) এর মাত্রা কমে গিয়ে উপকারী কলেস্টেরল (good cholesterol) এর পরিমাণ বেড়ে যাই। তাই আমাদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে নিয়মিত একগ্লাস কমলার জুস খাওয়া খুব উপকারী।


হার্ট সুস্থ রাখে:

     কমলায় আছে প্রচুর পরিমাণে খনিজ উপাদান যা হৃদস্পন্দন নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি নিয়মিত রাখতে সাহায্য করে। পটাশিয়াম এবং ক্যালশিয়ামের মতো খনিজ উপাদানগুলো শরীরে সোডিয়ামের প্রভাব নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে রক্তচাপ ও হৃদস্পন্দন ঠিক রাখতে সাহায্য করে। কমলার চর্বিহীণ আঁশ, সোডিয়াম মুক্ত এবং কোলেস্টেরল মুক্ত উপাদানগুলো হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখে।


এক নজরে কমলার উপকারিতা

১) কিডনিতে পাথর  হওয়া প্রতিরোধ করে,
২) এটি খেলে চর্বি কিছুটা কমে,
৩) যাদের পেট বেশি মোটা তারা খেলে পেট কিছুটা কমে যায়,
৪) দাঁতকে সুন্দর করে,
৫) যদি প্রতিদিন কেউ কমলা খায় তাহলে তার কিডনিতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়,
৬) কমলাতে হেসপেরিডিন এবং পেকটিন থাকে যা কিনা কোলেস্টেরল কমায় আর যার কারণে কমলা খেলে এটি শরীরের চর্বি আস্তে আস্তে কমাতে সাহায্য করে,
৭) কমলার ক্যালরি অনেক কম তাই এটি শরীরের সুগারের উপর কাজ করে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে,
৮) কেউ যদি প্রতিদিন এক গ্লাস কমলার জুস খায় তাহলে তার রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়,
৯) কমলাতে হেসপিরিডিন এবং ম্যাগনেসিয়াম থাকার কারনে এটি ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে,
১০) কমলাতে ডি-লিনোনেন নামক এক ধরনের জিনিস থাকে যা কিনা প্নেক ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। তাই কেউ যদি কমলা খায় তাহলে এই কমলা খাওয়ার কারনে সে কোলন ক্যান্সার,ফুসফুসের ক্যান্সার,স্কিন ক্যান্সার,ব্রেস্ট ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারবে,
১১) কমলাতে আঁশ, হেসপেরিডিন, ফলেট থাকার কারণে এটি স্বাস্থ্যকে ভাল রাখে। কেউ নিয়মিত কমলা খেলে তার হার্ট ভাল থাকে,
১২) কমলাতে ফলিক এসিড থাকে যা কিনা ব্রেনের ডেভেলপমেন্টে কাজ করে,
১৩) কমলাতে থাকে ভিটামিন সি আর যা কিনা আমাদের শ্বেত রক্ত কণিকার সংখ্যা বাড়ায়ে আমাদের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতাকে উন্নত করে,
১৪) কমলাতে কম ক্যালরি এবং বেশি ফাইবার থাকার কারণে এটি ওজন কমাতে সাহায্য করে,
১৫) কমলাতে ফ্লাভোনোয়েড এবং পলিফেনল থাকার কারণে এটি ভাইরাল ইনফেকশন থেকে আমাদের সাহায্য করে,
১৬) কমলাতে ক্যালসিয়াম থাকার কারণে এটি হাড় এবং দাতের গঠন ঠিক রাখ্তে সাহায্য করে,
১৭) কমলাতে অনেক বেশি ফাইবার থাকার কারণে এটি অনেক আলসার প্রতিরোধে সাহায্য করে।কেউ নিয়মিত কমলা খেলে তার পাকস্থলির ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে,
১৮) কমলা খেলে চোখের জ্যোতি ভাল থাকে,
১৯) কমলাতে ভিটামিন সি থাকার কারণে এটি আর্টেরিওস্কেলোরোসিস থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে,
২০) যেসব মায়েরা বাচ্চাদের বুকের দুধ পান করায় তাদের জন্য কমলা খুবই উপকারী কারণ তারা যদি ঠিকমত কমলা খায় তাহলে এতে অতিরিক্ত দুধ আসে ব্রেস্ট থেকে যার কারোনে বাচ্চা ও ঠিকমত দুধ পায়,
২১) কেউ নিয়মিত কমলার চা খেলে তার শ্বাসের সমস্যা কিছুটা হলে ও কমে এবং সেই সাথে ওরাল হাইজিন উন্নত করে এটি,
২২) কমলা খেলে রক্ত সঞ্চালন ভাল থাকে,
২৩) চুলের গ্রোথে কমলা খুবই উপকারি,
২৪) ড্যানড্রাফ দূর করতে ও কমলার জুড়ি নেই,
২৫) কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে কমলা সাহায্য করে কারণ কমলাতে ফাইবার বেশি থাকে।


পোস্ট টি পড়ার জন্য আপনাকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ 
আমাদের পোস্ট টি পড়ে যদি আপনার ভালো লাগে অথবা এই পোস্ট থেকে আপনি যদি উপকৃত হন, তাহলে আপনার একটি মূল্যবান কমেন্ট করেদিন, 
 এতে আমরা আরো অনুপ্রাণিত হতে পারি।  


আপনার একটি কমেন্ট আমাদের আরো বেশি উৎসাহিত করে 


Thank You 


No comments:

Post a Comment

My Blog List

  • Positive Thoughts - * 1) ‘Dreams are not what you see in your sleep. Dreams* *That's what keeps you awake. '* *2) ‘To be as bright as the sun first* *You have to burn li...
    6 months ago

Popular Posts